২৫-বিদআতী ওসীলা

বিদআতী ওসীলা

যেমন নবী (ছাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম)এর মর্যাদার ওসীলা করা বা কোন সৃষ্টির সত্বার ওসীলা করা, অথবা কোন মৃতের কাছে দু‘আ চাওয়া বা শাফা’আত চাওয়া… প্রভৃতি শির্কের অন্যতম মাধ্যম। দুআয় এরূপ বলা জায়েয নয়: হে আল্লাহ্‌ তোমার নবীর মর্যাদার ওসীলা চাইছি। অথবা এরূপ বলা বৈধ নয়: হে আল্লাহ্‌ উমুকের দোহাই দিয়ে বা উমুক মৃত পীরের ওসীলায় তোমার কাছে চাইছি… এগুলো সবই নাজায়েয কথা।

শরীয়ত সম্মত ওসীলা তিন প্রকার:

১) আল্লাহ্‌ তা’আলার নাম ও গুণাবলীর ওসীলা করা। যেমন এরূপ বলা বৈধ: (ياَ رَحِيْم ارْحَمْنِيْ، ياَ غَفُوْرُ اغْفِرْلِيْ ) “হে করুণাময় আমাকে করুণা কর। হে ক্ষমাশীল আমাকে ক্ষমা কর।”

২) ঈমান এবং সৎ আমলের ওসীলা করা। যেমন: (اللهُمَّ بِإيْماَنِيْ بِكَ وتَصْدِيْقِيْ لِرُسُلِكَ أدْخِلْنِيْ جَنَّتَكَ) “হে আল্লাহ্‌ আপনার প্রতি আমার ঈমান এবং আপনার রাসূলকে সত্যপ্রতিপন্ন করার ওসীলায় আমাকে জান্নাতে প্রবেশ করাও।”

৩) জীবিত সৎলোকের দুআর ওসীলা করা। যেমন: কোন সৎ লোককে বলবে তিনি যেন তার জন্য দুআ করেন। কেননা মুসলিম ভাইয়ের অনুপস্থিতিতে তার জন্য দুআ করলে তা কবূল হয়ে থাকে। কিন্তু কোন মৃতের কবরের কাছে গিয়ে তার কাছে দুআ চাওয়া জায়েয নয়।

এগুলো পূর্বে যা উল্লেখ করা হল তা সবই আল্লাহ্‌র অধিকারের সাথে জড়িত। গাইরুল্লাহ্‌র জন্য কোন কিছু ব্যয় করা শির্কের অন্তর্ভূক্ত।

One thought on “২৫-বিদআতী ওসীলা

জাযাকাল্লাহু খাইরান।

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s